1. abdulla914559@gmail.com : Abdullah Al Mamun : Abdullah Al Mamun
  2. info@vorerjanala.com : admin : মেহেদী হাসান রিয়াদ
  3. parvessarker122@gmail.com : Md Parves : Md Parves
  4. anarul.roby@gmail.com : সহকারী ডেস্ক :
  5. i.am.saiful600@gmail.com : Saiful Islam : Saiful Islam
  6. sailorinfotech@gmail.com : N H Nahid : N H Nahid
  7. billaldebidwar@gmail.com : MD Billal Hossain : MD Billal Hossain
  8. rustom.ali.ml@gmail.com : Rustom Ali : Rustom Ali
  9. cricket.sajib@gmail.com : Md. Sazib Mandal : Md. Sazib Mandal
  10. subrotostudio35@gmail.com : Subroto Sorkar : Subroto Sorkar
ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন করে পুরস্কার পেলেন ওসি তদন্ত ছমিউদ্দিন » ভোরের জানালা ডট কম
সর্বশেষ
১ হাত জমি নিয়ে আপন ভাইয়ের হাতে খুন অপর ভাই শৈলকুপায় জমি নিয়ে সংঘর্ষে একজন নিহত রাজামেহার চাটুলীতে মালদ্বীপ প্রবাসী নাসিরের অর্থায়নে জমজ দুই বাচ্চার পরিবার পেল নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের ১৪ তম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে হালিশহর থানা ছাত্রদলের দোয়া মাহফিল সাংবাদিক হুমায়ুন কবির ও জিয়াউর রহমান এর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে প্রতিবাদ সভা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে: হুমায়ুন কবির দেবীদ্বার রাজামেহার বাজারে ভূয়া ডাক্তারের পরিচয় ফাঁস যশোর সদরে নৌকার মাঝি হতে চায় সাবেক এমপি রাজু’র সহধর্মিণী ফিরোজা রাজশাহীর বাঘায় ইউনিয়ন ভিত্তিক গনটিকার দ্বিতীয় ডোজের শুভ উদ্বোধন বঙ্গবন্ধুকন্যা, আমাকে কি একটু নিরাপত্তা দিতে পারেন : পরীমনি

আজ

  • আজ শনিবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং
  • ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (শরৎকাল)
  • ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরী
  • এখন সময়, সন্ধ্যা ৭:১৩

ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন করে পুরস্কার পেলেন ওসি তদন্ত ছমিউদ্দিন

  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ১৮ আগস্ট, ২০২১
ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন করে পুরস্কার পেলেন ওসি তদন্ত ছমিউদ্দিন
কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ পিপিএম (বার) এর হাত থেকে ক্রেষ্ট গ্রহণ করছেন দেবিদ্বার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ ছমিউদ্দিন

মেহেদী হাসান রিয়াদ :: ক্লুলেস ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটনের জন্য পুরষ্কার পেলেন কুমিল্লার দেবিদ্বার থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ ছমিউদ্দিন। গত মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট ২০২১ইং) কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ পিপিএম (বার) তাকে কৃতিত্বপৃর্ণ কর্মের স্বীকৃতি স্বরূপ ক্রেষ্ট, নগদ অর্থ পুরস্কার ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

জানা যায়, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ ছমিউদ্দিন এর নেতৃত্বে মামলার তদন্ত কাজে সহায়ক টিমের এসআই আলমগীর, এসআই সোহরাব, এসআই মাহবুব, কম্পিউটার অপারেটর-কনষ্টেবল তানভীর, রবিউলসহ গত ০২ জুলাই ক্লুলেস ডাকাতি মামলার ঘটনায় ১১দিনের মধ্যেই কুমিল্লা জেলার দুর্র্ধষ ৫ ডাকাত, ডাকাতির স্বর্ণালংকার চোরাকারবারী ও অর্থায়নকারীসহ জড়িত ৭ জনকে গ্রেফতার, লুন্ঠিত ১০ ভরি ২ আনা স্বর্ণালংকার উদ্ধার ও জড়িত ৩ জন আসামীর ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী রেকর্ড করতে সক্ষম হয়।

সূত্র থেকে জানা যায়, গত ০২ জুলাই রাত অনুমানিক ৩টা থেকে ৪ টার মধ্যে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডাঃ রেজাউল করিমের দেবিদ্বার থানাধীন কাবিলপুরস্হ (কুরচাপ) গ্রামের বাড়িতে একটি দুর্র্ধষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাঃ রেজাউল করিমের মা রহিমা খাতুন(৭৫) এর গলায় রাম দা ধরে ও মারধর করে বেডরুমের ওয়ার ড্রাপ ও ষ্টীলের আলমারী থেকে বিপুল পরিমান স্বর্ণালংকার, একটি মোবাইল ফোন ও কিছু নগদ টাকা নিয়ে যায়। পরে এই বিষয়ে ডাঃ রেজাউল করিম বাদী হয়ে দেবিদ্বার থানায় একটি ডাকাতির মামলা রুজু করলে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান এর নির্দেশে মামলাটির তদন্ত শুরু করেন দেবিদ্বার থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ ছমিউদ্দিন।

চাঞ্চল্যকর ও ক্ললেস মামলাটি রুজু করার পর প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে ০২ দিনের মাথায় দেবিদ্বার থানাধীন এলাহাবাদ (উটখারা) গ্রামের কুখ্যাত ডাকাত রফিককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় থানা পুলিশ। পরদিন দেবিদ্বার ও বুড়িচং থানা পুলিশের সাথে যৌথ অভিযানে বুড়িচং থানার ইন্দ্রাবতী গ্রামের কুখ্যাত ডাকাত সোহেলকেও গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। প্রযুক্তি বিশ্লেষণ করে আসামীদের ডাকাতের সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমৃলক জবানবন্দী রেকর্ড করা হয়। এরই মধ্যে উক্ত ভাকাতির ঘটনার অন্যতম পরিকল্পনাকারী ডাকাত আবুল ও ডাকাত রুহুল আমিন কে চান্দিনা থানা পুলিশ গ্রেফতার করে।

সর্বশেষ দেবিদ্বার থানাধীন ছোটনা গ্রামের ডাকাত আনোয়ারকে গ্রেফতারের পর তার দেওয়া তথ্য মতে বুড়িচং থানার কালাকচুয়া বাজারে দেবিদ্বার ও দেবপুর ফাঁড়ি পুলিশ যৌথ অভিযান পরিচালনা করে ক্লুলেস ডাকাতির ঘটনার মুল পৃষ্টপোষক স্বর্ণ ব্যবসায়ী রিপন চন্দ্র সাহাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। পরে তার বসত ঘরে অভিযান পরিচালনা করে ডাকাত দলের লুন্ঠিত ১০ভরি ২আনা স্বর্ণের পুরাটাই (গলিয়ে ফেলার পর ৮ ভরি ৭ আনা, যার মূল্য ০৫ লাখ ৩০ হাজার) উদ্ধার করা হয়। এরপর রিপন চন্দ্র সাহা গত ১৪ জুলাই বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমৃলক জবানবন্দী প্রদান করে।

এদিকে ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত ০৭ জনসহ মোট মোট ০৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এবং ২ জন ডাকাত ও ডাকাতির পৃষ্টপোষক রিপন চন্দ্র সাহাসহ মোট ৩ জন বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমৃলক জবানবন্দী প্রদান করেছে।

দেবিদ্বার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ ছমিউদ্দিন কুমিল্লা জেলার মাননীয় পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ), মামলাটির সরাসরি তদারককারী কর্মকর্তা দেবিদ্বার সার্কেল এর সিনিয়র এএসপি আমিরুল্লাহ, দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান সহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি জানান, ‘সকলের সহযোগিতায় ভালো কিছু করতে পেরে আমি পুরস্কার পেয়েছি। এতে আমার কাজের মনোবল আরো শক্তিশালী হয়েছে’।

সবার সাথে শেয়ার করুন

অন্যান্য সংবাদ পড়ুন
  • এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
  • © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার ‘ভোরের জানালা ডট কম’ কর্তৃক সংরক্ষিত।
সাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপ মেহেদী হাসান রিয়াদ - 01760-955268
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।