1. abdulla914559@gmail.com : Abdullah Al Mamun : Abdullah Al Mamun
  2. info@vorerjanala.com : admin : মেহেদী হাসান রিয়াদ
  3. parvessarker122@gmail.com : Md Parves : Md Parves
  4. anarul.roby@gmail.com : সহকারী ডেস্ক :
  5. i.am.saiful600@gmail.com : Saiful Islam : Saiful Islam
  6. sailorinfotech@gmail.com : N H Nahid : N H Nahid
  7. billaldebidwar@gmail.com : MD Billal Hossain : MD Billal Hossain
  8. rustom.ali.ml@gmail.com : Rustom Ali : Rustom Ali
  9. cricket.sajib@gmail.com : Md. Sazib Mandal : Md. Sazib Mandal
  10. subrotostudio35@gmail.com : Subroto Sorkar : Subroto Sorkar
ধর্ম যার যার উৎসব সবার এ কথাটি শরীয়ত সম্মত কি না এ বিষয়ে কুরআন-হাদিসের দলীল » ভোরের জানালা ডট কম
সর্বশেষ
গঙ্গামন্ডল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কলেজের এইচএসসি পরিক্ষার্থীদের বিদায় উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দ জসিম উদ্দিনের গণসংযোগ বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় বনকোট ইউনিয়ন বিএনপির দোয়া মাহফিল দেবিদ্বারে হিন্দু সম্প্রদায়ের সাথে খোরশেদ আলম চেয়ারম্যান’র নির্বাচনী মতবিনিময় সভা ও মধ্যাহ্ন ভোজ বাড়ি ফেরা হলো না চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র ইউসুফের বাংলাদেশে কোভিডে বাড়ছে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা চীনা PLAAF তাইওয়ান স্ট্রেইট দিয়ে যাওয়া জাহাজের সমালোচনা করার সময় তাইওয়ানের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে দেবিদ্বারে শাপলাকাব এ্যাওয়ার্ড অর্জনকারীদের সংবর্ধনা ও শিক্ষা উপকরণ প্রদান বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে টিকা নিতে আসা মানুষের উপচে পড়া ভিড় কম্বোডিয়ান ছাত্রের উড়ন্ত গাড়ি তৈরির গল্প

আজ

  • আজ রবিবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২১ ইং
  • ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল)
  • ২২শে রবিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী
  • এখন সময়, সকাল ৮:৩৭

ধর্ম যার যার উৎসব সবার এ কথাটি শরীয়ত সম্মত কি না এ বিষয়ে কুরআন-হাদিসের দলীল

  • প্রকাশের সময়: মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১

লেখক: উপাধ্যক্ষ মোঃ কাইয়ুম মীর,রাজামেহার ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা

কুরআনুল কারীমে এরশাদ হচ্ছে –

” আর কুরআনের মাধ্যমে তোমাদের প্রতি এ হুকুম জারি করে দিয়েছে যে,যখন আল্লাহ্ তা’আলার আয়াতসমূহের প্রতি অস্বীকৃতিজ্ঞাপন
ও বিদ্রুপ হতে শুনবে, তখন তোমরা তাদের সাথে বসবে না, যতক্ষণ না তারা প্রসঙ্গান্তরে চলে যায়।
তা না হলে তোমরাও তাদেরই মত হয়ে যাবে।

( সূরা আন-নিসা ১৪০)

ব্যাখ্যা ঃ যদি কিছু লোক একত্রিত হয়ে আল্লাহপাকের কোনো আয়াত বা হুকুমকে অস্বীকার বা ঠাট্রা-বিদ্রুপ করতে থাকে, তবে যতক্ষণ তারা এহেন গর্হিত ও অন্যায় কার্যে লিপ্ত
থাকবে,ততক্ষণ তাদের মজলিসে বসা বা যোগদান করা মুসলমানদের জন্য হারাম। আলোচ্য আয়াতের শেষে এরশাদ হয়েছে ——
” ইন্নাকুম ইযাম মিসলুহুম ” অর্থাৎ এমন মজলিস
যেখানে আল্লাহপাকের আয়াত ও আহকামকে
অস্বীকার, বিদ্রুপ বা বিকৃতি করা হয়, সেখানে হৃষ্টচিত্তে উপবেশন করলে তোমরাও তাদের সমতুল্য ও তাদের গোনাহর অংশীদার হবে। অর্থাৎ তোমরা যদি তাদের কুফরী কথাবার্তা মনে-প্রাণে পছন্দ করো,তাহলে বস্তুত: তোমরাও কাফের হয়ে যাবে। কেননা কুফরী পছন্দ করাও কুফরী। আর যদি তাদের কথাবার্তা পছন্দ না করা
সত্ত্বেও বিনা প্রয়োজনে তাদের সাথে উঠা বসা করো এমতাবস্তায় তাদের সমতুল্য হওয়ার অর্থ
হবে তারা যেভাবে শরীয়তকে হেয় প্রতিপন্ন করা ও ইসলামে এবং মুসলমানদের ক্ষতি সাধন করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে,তোমরা তাদের আসরে যোগদান করে সহযোগিতা করায় তাদের মতই ইসলামের ক্ষতি সাধন করছ।

( মাআরেফুল কুরআন ২৮৯ পৃষ্ঠা)

এরশাদ হচ্ছে —
” হে নবি! যখন আপনি তাদেরকে দেখেন, যারা আমার আয়াতসমূহে ছিদ্রান্বেষণ করে,তখন তাদের কাছ থেকে সরে যান যে পর্যন্ত তারা অন্য কথায় প্রবৃত্ত না হয়। যদি শয়তান আপনাকে ভুলিয়ে দেয়,তবে স্মরণ হওয়ার পর জালিমদের
সাথে উপবেশন করবেন না।

( সূরা আল-আনআম ৬৮)

ব্যাখ্যা : উক্ত আয়াতে বাতেল পন্হীদের সংস্পর্শে
থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে যে, যে কাজ নিজে করা গুনাহ্ সেই কাজ যারা করে, তাদের মজলিসে যোগদান করাও গুনাহ্।
ইমাম ফখরুদ্দিন রাযী (রহ:) তাফসীরে -কবীরে বলেন, এ আয়াতের আসল উদ্দেশ্য হচ্ছে গুনাহের মজলিস ও মজলিসের লোকদের থেকে
মুখ ফিরিয়ে নেয়া।

( মাআরেফুল কুরআন ৩৮৯পৃষ্ঠা)

এরশাদ হচ্ছে– ” অনেক মানুষ আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস স্হাপন করে,কিন্তু সাথে সাথে তারা শিরকও করে। ” ( সূরা ইউসুফ ১০৬)
অর্থাৎ মু’মিনদের মধ্যে অনেক লোক রয়েছে যারা
ঈমানদার হওয়া সত্ত্বেও আল্লাহ্ তা’আলার জ্ঞান,
শক্তি প্রভৃতি গুণাবলীর সাথে অংশীদার সাব্যস্ত করে,যা একান্ত অন্যায় ও নিছক মূর্খতা।
( মাআরেফুল কুরআন ৬৯৩পৃষ্ঠা)

উপসংহার : ইসলাম বিরোধী যত মতবাদ ও মতাদর্শ এবং ধর্ম রয়েছে তা সবই বাতিল ও মিথ্যা। ইসলাম ব্যতীত অন্য কোনো মতবাদ-মতাদর্শ ও ধর্ম আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।
যদিও ইসলাম সকল ধর্মের অনুসারীদেরকে তাদের নিজ নিজ ধর্ম পালন করার পূর্ণ অনুমতি
দিয়েছে। অন্য কোনো ধর্মালম্বীদেরকে তাদের ধর্ম পালনে কোনো রকম বাধা-প্রতিবন্দ্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না, এটা ইসলামে নিষধ করা হয়েছে।
যাক, মূল কথা হলো ইসলামই একমাত্র আল্লাহর মনোনিত ধর্ম বা জীবনাদর্শ। ইসলাম ছাড়া অন্য কোনো ধর্ম বা মতবাদ ও মতাদর্শ আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। যেমন আল্লাহপাক এরশাদ ফরমান: ” ওয়া মাইইয়াবতাগি গাইরাল ইসলামি
দ্বীনান ফালাইইউক্ববালা মিনহু ওয়া হুয়া ফিল আখিরাতি মিনাল খাসিরীন।” অর্থাৎ যে ব্যক্তি ইসলাম ছাড়া অন্য কোনো দ্বীন বা জীবনাদর্শ তালাশ করে কশ্শিনকালেও তার পক্ষ থেকে তা কবুল করা হবে না, উপরন্ত সে পরকালে ক্ষতি-
গ্রস্তদের অন্তর্ভূক্ত হবে।

( সূরা আলে ইমরান ৮৫)

সুতরাং উপরিউক্ত আলোচনার মাধ্যমে বিধর্মীদের মজলিসে বা তাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদিতে যোগদান করা সম্পর্কে শরীয়ত কি নির্দেশ দিয়েছে তা এখানে তুলে ধরা হলো –

ইসলাম বিরোধী যত মতবাদ- মতাদর্শ ও ধর্ম রয়েছে এ সব অনুষ্ঠানাদিতে বা মজলিসে উপস্হিত হওয়া কয়েক প্রকার রয়েছে।

প্রথম প্রকার – বিধর্মীদের কুফরী চিন্তাধারার প্রতি সম্মতি ও সন্তুষ্টি সহকারে যোগদান করা। এটা
মারাত্মক অপরাধ কুফর ও শিরক।

দ্বিতীয় প্রকার – বিধর্মীকর্তৃক তাদের গর্হিত আলোচনা চলাকালে বিনা প্রয়োজনে অপছন্দ সহকারে তাদের মজলিসে উপবেশন করা। এটা
অত্যন্ত অন্যায় ও ফাসেক্বী তথা গুনাহের কাজ।

তৃতীয় প্রকার – প্রর্থিব প্রয়োজনবশত : বিরক্তি সহকারে বসা জায়েয।

চতুর্থ প্রকার – জোর-জবরদস্তির কারণে বাধ্য হয়ে
বা অনিচ্ছাকৃতভাবে বসা ক্ষমার্হ।

পঞ্চম প্রকার – অমুসলিমদেরকে ইসলামের দাওয়াত দিয়ে সৎপথে আনয়নের উদ্দেশ্যে উপস্হিত হওয়া সাওয়াবের কাজ।

অতএব, এ কথা সুস্পষ্টভাবে প্রতিভাত হলো যে, উপরিউক্ত আয়াতগুলোর দ্বারা মূলত: প্রথম প্রকার ও দ্বিতীয় প্রকার উপস্হিতিকে বুঝানো হয়েছে। অর্থাৎ প্রথম প্রকারের উপস্হিতি কুফরী ও শিরকী যা ক্ষমার অযোগ্য পাপ। এ পাপে যারা
লিপ্ত হবে অবশ্যই তাদের ঈমান নষ্ট হয়ে যাবে।
আর দ্বিতীয় প্রকারের উপস্হিতিতে ঈমান নষ্ট হবে না তবে গুনাহ হবে। আল্লাহ যেন আমাদে-রকে এ সব অপকর্ম থেকে হিফাজত করেন।
আমীন! আমীন!! আমীন!!!

সবার সাথে শেয়ার করুন

অন্যান্য সংবাদ পড়ুন
  • এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
  • © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার ‘ভোরের জানালা ডট কম’ কর্তৃক সংরক্ষিত।
সাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপ মেহেদী হাসান রিয়াদ - 01760-955268
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।