1. abdulla914559@gmail.com : Abdullah Al Mamun : Abdullah Al Mamun
  2. info@vorerjanala.com : admin : মেহেদী হাসান রিয়াদ
  3. parvessarker122@gmail.com : Md Parves : Md Parves
  4. anarul.roby@gmail.com : সহকারী ডেস্ক :
  5. i.am.saiful600@gmail.com : Saiful Islam : Saiful Islam
  6. sailorinfotech@gmail.com : N H Nahid : N H Nahid
  7. nu356548@gmail.com : Nasiruddin Liton : Nasiruddin Liton
  8. billaldebidwar@gmail.com : MD Billal Hossain : MD Billal Hossain
  9. rustom.ali.ml@gmail.com : Rustom Ali : Rustom Ali
  10. cricket.sajib@gmail.com : Md. Sazib Mandal : Md. Sazib Mandal
  11. journalistsojibakbor01713@gmail.com : Sojib Akbor : Sojib Akbor
  12. subrotostudio35@gmail.com : Subroto Sorkar : Subroto Sorkar
হাসপাতালে স্ত্রীর লাশ; পালালেন স্বামী » ভোরের জানালা ডট কম
সর্বশেষ

আজ

  • আজ বুধবার, ১০ই আগস্ট, ২০২২ ইং
  • ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল)
  • ১১ই মুহররম, ১৪৪৪ হিজরী
  • এখন সময়, রাত ২:০৯

হাসপাতালে স্ত্রীর লাশ; পালালেন স্বামী

  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৯

দেবিদ্বার (কুমিল্লা):

কুমিল্লার দেবিদ্বারে বিয়ের ৫ মাস না যেতেই লাশ হতে হলো এক গৃহবধুর। কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করার পর গত শুক্রবার বিকালে ওই গৃহবধুর লাশ চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে পালিয়ে যান স্বামী সাখাওয়াত হোসেন (২০)।

ওই গৃহবধু হলো দেবিদ্বার উপজেলার বরকামতা ইউনিয়নের ব্রাহ্মনখাড়া গ্রামের প্রবাসী মো. কবির হোসেনের মেয়ে মোসা. জান্নান আক্তার (১৮)।
স্বামী সাখাওয়াত হোসেন একই গ্রামের আবদুল ওহাব মিয়ার ছেলে।

এর আগে দুপুরে নিহত জান্নাতকে ঘরের সিলিং-এ ওড়না প্যাচানো অবস্থায় উদ্ধার করে স্বামী সাখাওয়াত হোসেন ও তার বড় ভাই মো. দুলাল মিয়া। পরে চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক জান্নাতকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে জান্নাতের মৃতদেহ চান্দিনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে রাত সাড়ে ১২টার দিকে দেবিদ্বার থানায় আনা হয়।

এ ব্যাপারে দেবিদ্বার থানায় আত্মহত্যায় প্ররোচণার দায়ের স্বামী সাখাওয়াত হোসেন ও তার বাবা-মাকে অভিযুক্ত করে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় একটি মামলা দায়ের করেন নিহতের বড় মামা মো. শাহ আলম। শনিবার সকাল ১০ টায় জান্নাতের মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করা হয়। অভিযোগ দায়েরের পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন দেবিদ্বার থানার সিনিয়র উপ-পরিদর্শক মো. ইকতিয়ার হোসেন ও উপপরিদর্শক মো. রবিউল ইসলাম।

সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন গেলে নিহতের মা হাসিয়া বেগম এ প্রতিবেদককে জানান, জান্নাত ও সাখাওয়াত গত পাঁচ মাস আগে প্রেম করে উভয় পরিবারের কাউকে না জানিয়ে কুমিল্লা কোর্টে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। পরে সামাজিকভাবে দেন-দরবারের পর উভয় পরিবার দুজনের বিয়ে মেনে নিয়ে জান্নাতকে শ্বশুড়বাড়িতে নেওয়া হয়। এর কিছুদিন পর সাখাওয়াতকে সৌদি আরবে পাঠাতে ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক দেওয়ার দাবি করে সাখাওয়াতের বাবা-মা। পরে জান্নাতের মা হাসিয়া বেগম তার স্বামী প্রবাসী কবির হোসেনের সাথে পরামর্শ করে এত টাকা দিতে পারবেন না বলে মেয়ের শ্বশুড়বাড়ির লোকজনকে জানান। টাকা দেওয়ার অপরাগতা প্রকাশের পর থেকে জান্নাতের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে স্বামী সাখাওয়াত হোসেন ও তার বাবা-মা। এ নিয়ে জান্নাত ও তার স্বামী সাখাওয়াতের মধ্যে প্রায়ই পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। পরে শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে জান্নাতকে গলায় উড়না প্যাচানো অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, তার মেয়েকে হত্যা করে ঘরের সিলিং এ ঝুলিয়ে রাখা হয়।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দেবিদ্বার থানারও উপ-পরিদর্শক মো. রবিউল ইসলাম জানান, দেবিদ্বার থানায় ৩০৬ ধারায় আত্মহত্যা প্ররোচনার দায়ে একটি মামলা দায়ের করেন নিহত জান্নাতের বড় মামা মো. শাহ আলম। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (কুমেক) প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রির্পোট প্রকাশের পর প্রকৃত রহস্য জানা যাবে।

বরকামতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. নুরুল ইসলাম জানান, ছেলে ও মেয়ে কয়েকমাস আগে পালিয়ে কোর্টে বিয়ে করে। পরে সামাজিকভাবে দরবারের পর তাদের উভয়ের পরিবারের সম্মতে তাদের আবার বিয়ে দেওয়া হয়। মেয়েকে মেরে ঘরের সিলিং এ ঝুলিয়ে রাখার যে অভিযোগ তারা করেছে সেটা অবান্তর। বিশ্বাসযোগ্য নয়, এটা প্রকৃত ঘটনা নয়। বিয়ের পর ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক চেয়েছে এ কথাও মেয়ের অভিভাবক কাউকে জানায়নি।

সবার সাথে শেয়ার করুন

অন্যান্য সংবাদ পড়ুন

tv 21

  • এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
  • © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার ‘ভোরের জানালা ডট কম’ কর্তৃক সংরক্ষিত।
সাইট ডিজাইন এন্ড ডেভেলপ মেহেদী হাসান রিয়াদ - 01760-955268
error: এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।