ভোরের জানালা

জনগণের কল্যাণে অগ্রদূত

রাজবাড়ীতে দেখে মনে হয়, ইটভাটার মালিকরাই পরিবেশ বান্ধব!

1 min read

রাজবাড়ী প্রতিনিধি:

রাজবাড়ীতে এখন আর কিছুই করার নেই নির্বিকারে অসহায় হয়ে তাকিয়ে থাকতে হয়, ইটভাটার মালিক পক্ষের দিকে । ইটভাটা কতৃপক্ষ যদি বলেন, ইট পোড়ানো, কালো ধোয়ায়, ক্যান্সার, জন্ডিস , হাঁপানি, শ্বাসকষ্ট, অ্যাজমা, কিডনি রোগ, ভালো হয়ে যায় সেইটাই আমাদের বিশ্বাস করে মেনে নিতে হবে , কেন দেখার যেন কেউ নেই । এমনই একটি দৃশ্য দেখা যায় চারপাশে ইটভাটায় উঠছে বিষাক্ত কালো ধোঁয়া , মাঝখানে বসবাস করছেন একটি ফ্যামিলি।

মেসার্স এস আই ব্রিকস্ প্রোপাইটার মোঃ আজিবর সরদার রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলায় খানখানাপুর ইউনিয়নের বাগুলপুর গ্রামের এই ফ্যামিলির আর্তনাদ শোনার যেন কেউ নেই । এ এস বি ব্রিকস্ নামে আরেকটি ইট ভাটা প্রোপাইটার মোঃ আক্তার শেখ , পাশেই রয়েছে বাংলা ভাটা নামে একটি ইট ভাটা , যার প্রোপাইটার একাধিক ব্যক্তি।

এই ফ্যামিলি রাতে শুয়েও যেন বিশুদ্ধ একটু নিঃশ্বাস দিতে পারে না। ইটভাটা কর্তৃক প্রভাবশালী হওয়ায় কিছু বললে তোয়াক্কা করছেনা ।

রাজবাড়ীতে ৭৮ টি ইটভাটার মধ্যে বেশিরভাগেরই নাই পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ও প্রশাসনের লাইসেন্স । তিন ফসলি জমির বুক চিরে গড়ে উঠেছে এই সকল ইটভাটা,কিছু কিছু ইটভাটায় গিয়ে জানা যায় কয়লা দিয়ে ইট পোড়ানো যায় সেই কথাটি কেউ জানেই না ।

অথচ পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রে বড় অক্ষরে লেখা আছে ইট ভাটায় জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করতে হবে কয়লা , তার কোন তোয়াক্কা না করে, নির্বিকারে ইট ভাটা জ্বালানি কাজে ব্যবহার করছে গাছের কাঠ ।

এতে বিষাক্ত কালো ধোয়ায় যেমন হচ্ছে পরিবেশ দূষণ , তেমনি দিচ্ছে ভয়ংকর কিছু রোগে সোবল । তেমন কিছু ইটভাটার সন্ধান দিয়েছে এলাকাবাসী । এই প্রতিবেদক সরজমিনে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পায় , এলাকাবাসীর দাবি প্রশাসনের নজরে নিয়ে বিষাক্ত কালো ধোয়া পরিবেশ দূষণ হইতে কয়েকটি পরিবারকে মুক্ত নিশ্বাস নেয়ার ব্যবস্থা করে দেয়ার আহ্বান ।

এ এস বি ব্রিকস্ প্রোপাইটার মোঃ আক্তার শেখ ৷ মেসার্স এস আই ব্রিকস্ প্রোপাইটার মোঃ আজিবর সরদার , প্রশাসনের নজরে দৃষ্টি আকর্ষণের আহ্বান ।

Please follow and like us:
স্বত্ব © ২০২৪ ভোরের জানালা | Newsphere by AF themes.
Translate »