ভোরের জানালা

জনগণের কল্যাণে অগ্রদূত

রাজবাড়ী গোয়ালন্দতে থামছেইনা সড়ক দুর্ঘটনা

1 min read

বাবলু শেখ, রাজবাড়ী

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দতে গোল্ডেন লাইন পরিবহনের চাপায় আকবর মল্লিক (৬০) নামে বাইসাইকেল আরোহী ও এম এম পরিবহনের চাপায় রনি মন্ডল (৩০) নামে মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। আকবর মল্লিক রাজবাড়ী সদর উপজেলা পাঁচুরিয়া ইউনিয়নের মুকুন্দিয়া গ্রামের মৃত মোনছের মল্লিকের ছেলে।

তিনি গোয়ালন্দ বাজারে কাপড়ের ব্যবসা করতেন। রনি মন্ডল গোয়ালন্দ রেল গেইট এলাকার আজাদ মন্ডলের ছেলে। এসময় শিল্পী বেগম, কাসেম আলী, আমেনা বেগম, মাহমুদ আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে মোটরসাইকেল আরোহী রনি মন্ডলকে গোয়ালন্দ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখান থেকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন । শিল্পী বেগম ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে কলেজে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনার পর উত্তেজিত জনতা প্রায় ৬ ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে রাখা সহ বেশ কয়েকটি গাড়ী ভাংচুর করেছে।

শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারী) সোয়া ১ টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের জমিদার ব্রীজ এলাকায় গোল্ডেন লাইন (কুষ্টিয়া ঘ ১১-০০৪৮) পরিবহনের দু’টি বাস বাইসাইকেল আরোহী ও মাহেন্দ্র গাড়ীকে ধাক্কা দেয় ও বিকেল ৪,টার দিকে এম,এম পরিবহনের একটি বাস মোটরসাইকেল আরোহী স্বামী স্ত্রীকে চাপা দেয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, রনি মন্ডলের মৃত্যুর খবরটি ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা অন্তত ২০টি গাড়ী ভাংচুর করে। সড়ক অবরোধ করায় জমিদার ব্রীজ থেকে খানখানাপুর এলাকা পর্যন্ত সড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়।

নিহত রনির এলাকাবাসী বলেন, এম.এম পরিবহনের বাস মোটরসাইকেল আরোহী স্বামী-স্ত্রীকে চাপা দিয়ে মোটরসাইকেলটি প্রায় এক কিলোমিটার টেনে নিয়ে যায়। আহত অবস্থায় শিল্পী ও তার স্বামী রনিকে প্রথমে গোয়ালন্দ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখান থেকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে, সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রনি মন্ডলের মৃত্যু হয়েছে।

আহালাদিপুর হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল হালিম বলেন, গোল্ডেন লাইন পরিবহন ও এম এম পরিবহনের বাস দুটি আটক করা হয়েছে । চালক ও সহকারি চালক পালিয়ে গেছে। জনতার দাবীর প্রেক্ষিতে স্পিড ব্রেকার দেওয়া হচ্ছে।

রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ৩,টি পৃথক সড়ক দুঘর্টনার পর স্থানীয়রা সড়কটি অবরোধ করে রাখে। পরে তাদের দাবীর প্রেক্ষিতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের উদ্যোগে স্প্রিড ব্রেকার দেওয়ার পর জনতা সড়ক ছেড়ে দেয়।

Please follow and like us:
স্বত্ব © ২০২৪ ভোরের জানালা | Newsphere by AF themes.
Translate »