ভোরের জানালা

জনগণের কল্যাণে অগ্রদূত

মুরাদনগরে সরিষা ফুলের মধু চাষে অর্ধকোটি টাকা আয়ের সম্ভাবনা, লক্ষ্য মাত্রা ৭.৫ টন

1 min read

মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:

কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলায় সরিষা ফুলের কৃষি মাঠে বাণিজ্যিকভাবে মধু চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৌ-চাষিরা। দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে মৌচাষীরা এসে সরিষা ক্ষেতের পাশে কৃত্রিম মৌবাক্স স্থাপন করেছেন। মৌমাছির আকর্ষণের জন্য প্রতিটি বাক্সে একটি করে রানি মৌমাছি ভরে রাখেন। আর তাতেই হাজার হাজার মৌমাছি সরিষা ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করে ওইসব কৃত্রিম মৌবাক্সে মধু সঞ্চয় করছেন। চলতি মৌসুমে এ অঞ্চল থেকে প্রায় অর্ধ কোটি টাকার মধু সংগ্রহ করবে বলে আশা করছেন খামারীরা।

সিরাজগঞ্জ থেকে মধু সংগ্রহ করতে আসা খামারী আব্দুল মালেক জানান, তিনি ১৫০টি মৌবাক্স বসিয়েছেন। এগুলো থেকে প্রতি সপ্তাহে মধু উৎপাদন হওয়ার কথা ৫থেকে ৬ মণ। এবার ১৪দিনে মধু সংগ্রহ করেছে মাত্র ৬.২৫ মণ। প্রতি কেজি মধু ৫০০-৬০০ টকা দরে বিক্রি করছেন। এতোদিন আবহাওয়া অন্ধকার থাকার কারণে মৌমাছি কম বাহির হইছে। গত ৩ দিন যাবত মৌ-পোকা বাহির হচ্ছে। আবহাওয়া ভালো থাকলে আগামী দিনগুলোতে ভালো মধু আহরণ করা যাবে। সাতক্ষীরা থেকেও মধু খামারী আসছেন বলে জানা গেছে।

মুরাদনগর কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে মুরাদনগরে ৯ হাজার ৫২হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের সরিষার আবাদ করা হয়েছে। দিগন্তজোড়া ফসলের মাঠ সরিষার ফুলে ভরে গেছে। আর এগুলো থেকে মধু সংগ্রহ করতে মৌ-খামারীরা আসছেন দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে। উপজেলার বেশি মধু আহরিত এলাকাসমূহ হলো- শ্রীকাইল, আকবপুর, রামচন্দ্রপুর উত্তর, আন্দিকুট, এবং দক্ষিন মুরাদনগরের বোরারচর ও ছালিয়াকন্দি। এখান থেকে মধু উৎপাদনের লক্ষ্য মাত্রা ৭.৫ টন। আজ শুক্রবার পর্যন্ত আহরণ করা হয়েছে ২.৬ টন।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. সুফি আহম্মেদ জানান, বারী-১৪ জাতের সরিষার বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলে প্রচুর মধু উৎপাদন করছেন খামারীরা। কিছু কিছু এলাকায় স্থানীয় কৃষরা ৮-১০টি বাক্স বসিয়ে কৃষি অফিসের পরামর্শ নিয়ে মধু সংগ্রহ করার কাজ করছেন। অনেক শিক্ষিত বেকার যুবকরাও সরিষার মধু সংগ্রহের কাজে এগিয়ে আসছেন।

মুরাদনগর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা পাভেল খাঁন পাপ্পু বলেন, ৯ হাজার ৫২ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের সরিষার আবাদ করা হয়েছে। সরিষা ক্ষেত থেকে মৌমাছি মধু আহরনের ফলে পরাগায়ণ সৃষ্টি হয় আর তাতে সরিষার বাম্পার ফলন ঘটছে। এ বছর সরিষা ফুলের মধু চাষের লক্ষ্য মাত্রা ৭.৫ টন। আশা করি আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এই লক্ষ্য মাত্রা অর্জন হবে। মৌ-চাষীদের যেকোন সমস্যা সমাধানে পাশে আছে কৃষি অফিস।

Please follow and like us:
স্বত্ব © ২০২৪ ভোরের জানালা | Newsphere by AF themes.
Translate »