ভোরের জানালা

জনগণের কল্যাণে অগ্রদূত

২০৪১ সালেই নয়, এর আগেই আমরা শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার শুণ্যের কোঠায় নিয়ে আসব -আবুল কালাম আজাদ এমপি

1 min read

দেবীদ্বার(কুমিল্লা)প্রতিনিধি:
২০৪১ সালেই নয়, এর আগেই আমরা শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার শুণ্যের কোঠায় নিয়ে আসব। এ লক্ষে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রগুলো ও এর সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের আধুনিক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। কেন্দ্রগুলোর অবকাঠামো উন্নয়ণ এবং প্রসূতি মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্যের দিক বিবেচনা করে দ্রæত সংস্কার কাজ করা হবে।
মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকাল ১০টায় দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে দেবীদ্বার উপজেলার ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে ২৪/৭ (সার্বক্ষণিক) স্বাভাবিক প্রসব সেবা জোরদারকরণ বিষয়ক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যদানকালে কুমিল্লা-৪ দেবীদ্বার আসনের সংসদ সদস্য মো. আবুল কালাম আজাদ ওই বক্তব্য তুলে ধরেন।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বাস্থ্য পরিদর্শিকাদের উদ্দেশ্য করে আরো বলেন, আপনাদের কাজের জন্য গোটা জাতি গর্বিত। আপনাদের কারণে দেবীদ্বার উপজেলা বিভাগের মধ্যে সুনাম অর্জন করেছে এবং কেন্দ্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে। স্বাস্থ্য পরিদর্শকদের প্রতিটি বাড়ীতে গিয়ে বুঝাতে হবে বাড়ীতে নয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে সন্তানের নিরাপদ ভূমিষ্ঠ করান। প্রসূতিতে আর কোন মায়ের মৃত্যু নয়, স্বাভাবিক প্রসূতিতে মায়েদের নিশ্চয়তা চাই।
পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের এমসিএইচ সার্ভিসেস ইউনিটের আয়োজনে দেবীদ্বার উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রায়হানুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে এবং কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ডাঃ তানজিল চৌধূরী, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক মহিউদ্দিন রায়হান ও পরিবার কল্যাণ পরিদর্শক রেবেকা সুলতানার সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মামুনুর রশিদ, ভাইস চেযারম্যান মো. আবদুল্লাহ্ আল কাইয়ুম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর লিপি। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ কুমিল্লা জেলা উপ-পরিচালক মো. মেহবুব মোরশেদ, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ কুমিল্লা জেলা উপ-পরিচালক ও এসসিএইচ ইউনিট প্রোগ্রাম ম্যানেজার (মাতৃস্বাস্থ্য) ডাঃ আ ন ম মোস্তফা কামাল মজুমদার, দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মো. আলী এহসান, দেবীদ্বার উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মো. রবিউল ইসলাম প্রমূখ। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের নানা সমস্যা, অভিজ্ঞতা এবং সমস্যা উত্তরনের মতামত গ্রহন ও প্রশ্নের জবাব দেন।
বক্তারা বলেন, দেবীদ্বারের বিভিন্ন ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে ২৪/৭ (সার্বক্ষণিক) স্বাভাবিক প্রসব সেবা আরও জোরদার করা। মাতৃমৃত্যু ও শিশু মৃত্যুর হার কমানো এবং নিরাপদ প্রাতিষ্ঠানিক প্রসবকে উৎসাহিত করার লক্ষে এই কর্মশালার আয়োজন। বাণিজ্যিক হাসপাতালে করা অপ্রয়োজনীয় সিজারিয়ান সেকশানের হার কমবে বলে জানান আলোচকরা। স্থানীয় পর্যায়ে জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ততা আরও বেশি জোরদার করতে হবে, যাতে একজন মা প্রসব সেবাসহ অন্যান্য সেবা সহজে পেতে পারেন সেদিকে গুরুত্বারোপ করতে হবে এবং ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রকে শক্তিশালী করে স্বাভাবিক প্রসব সেবা নিশ্চিতকরণে সর্বাত্মক সহযোগিতার আহবান জানান তারা।
উপজেলায় প্রাতিষ্ঠানিক স্বাভাবিক প্রসব সেবাকে মানুষের দোরগোড়ায় নিয়ে যেতে তারা নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া জরুরী প্রসূতি সেবায় গর্ভবতী মা এবং তার পরিবারকে অর্থ সঞ্চয়ের বিষয় উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে মায়ের ব্যাংক প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। মায়ের ব্যাংক কার্যক্রমটি মূলত দরিদ্র গর্ভবতী মায়েদের মধ্যে বিতরণ করা হবে। এ কর্মসূচিটি প্রসব সেবার পরিবারের সকলকে আরও দায়িত্বশীল করতে অনুপ্রাণিত করবে এবং জরুরী প্রসূতিদের আর্থিক সংকট দূর করবো।

Please follow and like us:
স্বত্ব © ২০২৪ ভোরের জানালা | Newsphere by AF themes.
Translate »