ভোরের জানালা

জনগণের কল্যাণে অগ্রদূত

শেরপুরে রাস্তা রক্ষায় নারী-পুরুষ ও শিক্ষার্থীর মানববন্ধন

1 min read

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি:

বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের রাস্তা রক্ষার দাবিতে প্রায় ১ হাজার নারী পুরুষ ও শিক্ষার্থী রাস্তায় দাঁড়িয়ে হাতে হাত রেখে শুক্রবার সকাল ১১টায় উপজেলার গোড়তা গ্রামে তারা মানববন্ধন করে।

মানবন্ধনে তারা জানান, স্বাধীনতার পর থেকে গোড়তা গ্রামে যাওয়ার জন্য তেমন উপযুক্ত কোন রাস্তা তৈরী হয়নি। বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি ভোটের সময় গিয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসলেও রাস্তাটি হয়নি। রাস্তা না থাকায় ওই গ্রামে লাগেনি উন্নয়নের ছোঁয়া। গত প্রায় ১ মাস পূর্বে স্থানীয়দের নিয়ে গ্রামবাসী মিটিং করে। পরে ওই মিটিংএ তারা গোড়তা হতে চৌমহুনী টু ছোনকা রাস্তার সাথে সংযুক্ত করার জন্য যে জমি লাগবে, সেই জমির মালিকদের থেকে দান বা ক্রয় করে নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহন করে। সেই মোতাবেক ১ হাজার ২৩০ ফিট দুরুত্ব রাস্তাটি শ্রী কদুনাথ, মুক্তার রহমান, মুরাদ রহমান, শ্রী অমল চন্দ্র সরকার, সবুজ মন্ডল, মাসুদ রানা, মহাব্বত মন্ডল, সুকুমার চন্দ্র, রবিন্দ্রনাথ, মোখলেছুর রহমান জমি দান করে তখন গ্রামবাসী রাস্তা তৈরী করে। এই রাস্তার মধ্যে হেমন্ত মাষ্টার নামের এক জমির মালিকে প্রায় ৮ শতক জমি রাস্তার মধ্যে যায়। তখন গ্রামবাসীরা ওই ৮ শতক জমির জন্য বাজার অনুযায়ি রাস্তার জন্য ক্রয় করে নিতে চাইলেও সে বিক্রয় না করার সিদ্ধান্ত জানান। এ নিয়ে গ্রামবাসী ও ওই মাষ্টারের গ্রুপের সঙ্গে ব্যাপক উত্তোজনা বিরাজ করে। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনির হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত রাখে।

এ বিষয়ে গ্রামবাসী আশরাফুল, সবুজ, সন্তোষ, শয়ন, রগু, খগেন্দ্রনাথ জানান, আমাদের প্রাণের দাবি যে রাস্তা হয়েছে এটা রক্ষা করা। রাস্তা না থাকায় আমাদের ছেলে মেয়ে স্কুলে যেতে পারেনা। রোগীকে আমরা কষ্ট করে জমির আইল দিয়ে নিয়ে যাই। বর্ষা মৌসুমে একহাটু পানির মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে হয়। কৃষি আবাদ বাড়ীতে তুলতে পারিনা অন্যের বাড়িতে তুলতে হয়।

গ্রামবাসী নূরুল ইসলাম, শ্রী কুমার, বাবলু মিয়া, সোবাহান হোসেন জানান, ১৬ জন রাস্তার জন্য জমি দান করেছে। হেমন্ত মাষ্টার নামের এক জমির মালিকে প্রায় ৮ শতক জমি রাস্তার মধ্যে যায়। তখন গ্রামবাসীরা ওই ৮ শতক জমি বাজার অনুয়ায়ি রাস্তার জন্য ক্রয় করে নিতে চাইলে সে বিক্রয় না করার সিদ্ধান্ত জানায়।

এ বিষয় হেমন্ত মাষ্টার বলেন, আমার ১০ শতক জমি গেছে। কিন্তু আমাকে কোনকিছু না জানিয়ে গত ৭ জানুয়ারি তারা আমার জমির মধ্যে দিয়ে রাস্তা করেছে। আমি প্রশাসনের আশ্রয় নিয়েছি। এখন পর্যন্ত কোন শুরহা হয়নি।
ভবানীপুর ইউনিয়ন চেয়রম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, হেমন্ত মাষ্টারকে না জানিয়ে জমির মধ্য দিয়ে রাস্তা তৈরী করেছে গ্রামবাসী। পরে সে থানায় অভিযোগ দিয়েছে। গ্রামবাসিকে নিয়ে বসে বিকল্প রাস্তা তৈরী করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেটা গ্রামবাসী মানেন না। এজন্য দখল মুক্ত করে যার যায়গা তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য গ্রামবাসীকে বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে শেরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ রেজাউল করিম জানান, হেমন্ত মাষ্টারে জমির মধ্যে দিয়ে জোরপূর্বক রাস্তা তৈরী করে নেওয়ার অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Please follow and like us:
স্বত্ব © ২০২৪ ভোরের জানালা | Developed by VJ IT.
Translate »