ভোরের জানালা

জনগণের কল্যাণে অগ্রদূত

অপহৃত ব্যাংক ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনের উদ্ধারে অভিযান চলমান

1 min read

বান্দরবান প্রতিনিধি:

অপহৃত ব্যাংক ম্যানেজার নেজাম উদ্দিনের উদ্ধারে অভিযান চলছে সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দিন
বান্দরবান: বান্দরবানের রুমা উপজেলায় অস্ত্রধারীদের হাতে অপহরণের শিকার সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দিনের সন্ধান এখনও মেলেনি। তাকে নিয়ে উদ্বেগে রয়েছে পুরো পরিবার ও ব্যাংক কর্মকর্তা এবং আত্মীয় স্বজনরা।

সূত্রে জানা যায়, নেজাম উদ্দিন কক্সবাজারের চকরিয়ার বিএমচর ইউনিয়নের বাক্যারপাড়া এলাকার মৃত ইমাম উদ্দিনের ছেলে। ২০১৫ সালে তিনি সোনালী ব্যাংকে যোগ দেন। ২০১৮ সালে বান্দরবান জেলার রোয়াংছড়ি শাখায় সিনিয়র অফিসার হিসেবে কাজ শুরু করেন। পরে ২০২১ সালে ব্যবস্থাপক পদে পদোন্নতি ও রুমা শাখার দায়িত্ব পান। চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে নেজাম তৃতীয়।

নেজাম উদ্দিনের ছোট ভাই মিজান উদ্দিন বলেন, ভাইয়ের সন্ধানে আমি রুমাতে আছি। এখন পর্যন্ত ভাইয়ের কোনো সংবাদ পায়নি। পরিবারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনো আইনগত কোনো পদক্ষেপও নেওয়া হয়নি। তিনি বলেন, ভাইয়ের অপহরণের সংবাদে আত্মীয়-স্বজন ও পুরো পরিবারে শোক নেমে এসেছে। আতঙ্ক আর উৎকণ্ঠা সবার মনে।

রুমা সদরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সবার মনে আতঙ্ক। সন্ত্রাসীদের বিশাল বহর আর সশস্ত্র অবস্থান দেখে সবাই বাকরুদ্ধ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী জানান, শতাধিক অস্ত্রধারী মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) রাতে প্রথমে সোনালী ব্যাংকে হানা দেয়। ক্যাশিয়ারের কাছে থাকা চাবিতে ভল্ট না খোলায় ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দিনের সন্ধানে তারা পার্শ্ববর্তী মসজিদে যায়, সেখান থেকে তাকে ব্যাংকে নিয়ে যায়, কিন্তু চাবি না পেয়ে নেজামকে তুলে নিয়ে পাহাড়ি সড়কে হেঁটে চলে যায়। আধা ঘণ্টা সময়ের মধ্যে বিদ্যুৎ বন্ধ রেখে সোনালী ব্যাংকে হামলা করে। পুলিশ ও আনসার সদস্যদের মারধর করে সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দিনকে সন্ত্রাসীরা নিয়ে যায়।

নেজামকে অক্ষত উদ্ধার ও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরাপত্তার দাবিতে বুধবার (৩ এপ্রিল) বেলা ১১টার দিকে রুমা উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে মানববন্ধন হয়েছে। উপজেলা পরিষদ এলাকায় এ মানববন্ধন করে রুমা উপজেলা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী পরিষদ।

এদিকে ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও এখনো হদিস মেলেনি সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক নেজাম উদ্দিনের।

রুমা থানার ওসি মো. শাহজাহান জানান, এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি, ব্যাংকের ম্যানেজারকে উদ্ধারে পুলিশ কাজ করছে।

প্রসঙ্গত: ০২ এপ্রিল (মঙ্গলবার) রাতে বান্দরবান জেলার রুমা উপজেলা মসজিদ ঘেরাও করে মুসল্লিদের মোবাইল ফোন ছিনতাই, আনসার ও পুলিশের অস্ত্র-গুলি লুট এবং সোনালী ব্যাংকের ভল্ট ভেঙে টাকা লুট করার চেষ্টা করা হয়েছে। টাকা নিতে না পেরে ব্যাংকের ম্যানেজারকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে পার্বত্য এলাকার আঞ্চলিক সশস্ত্র সংগঠন কুকি চিন ন্যাশনাল ফন্ট (কেএনএফ) নামে একটি সংগঠন।

Please follow and like us:
স্বত্ব © ২০২৪ ভোরের জানালা | Developed by VJ IT.
Translate »